মুক্তমত

শৈশবের ডাকবাক্স সামজিদা ইসলাম সুমাইয়া

  প্রতিনিধি ২৮ নভেম্বর ২০২০ , ৬:৪৩:৫৯ প্রিন্ট সংস্করণ

ধানের পাতায় জমে থাকা শিশিরে ঠোঁটফাটার চিকিৎসা করার অবোধ দিনে আমাদের একটি স্নিগ্ধ সকাল ছিলো।

ঘুম ভেঙ্গে ওযু করে মক্তবে পড়তে যাওয়ার আমাদের একটি নিষ্পাপ হৃদয় ছিলো।

ভাতঘুম ফাঁকি দিয়ে সবার অলক্ষ্যে বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে, গাছের মগডালে বসে থাকা আমাদের একটা অবাধ্য দুপুর ছিলো।

দলবেঁধে কল্লোলিনীতে যখন খুশি ঝাঁপিয়ে পড়ার মতো আমাদের একটি দূরন্ত হৃদয় ছিলো।

দাড়িয়াবান্ধা, গোল্লাছুট, হা-ডু-ডু, লুকাচুরি, কানামাছি সহ আরো হাজারো খেলায় মেতে থাকা আমাদের একটি উৎসবমুখর বিকেল ছিলো।

হ্যারিকেনের প্রভা জ্বালিয়ে লুকিয়ে গল্পের বই পড়ার জন্য আমাদের একটি মায়াময় নিশীথিনী ছিলো।

ঘুমঘুম চোখে প্রবীণদের মুখে হাজারো রূপকথায় গল্প শুনা আমাদের একটা কাল্পনিক অবনী ছিলো।

খেঁজুরের রসের গন্ধ এবং নতুন ধানের পিঠার উৎসবে মেতে থাকা আমাদের একটি কুয়াশা ভেজা শীতের সকাল ছিলো।

শীতের নিশীথিনীতে খড়ের বহ্নি জ্বালিয়ে উষ্ণতার খোঁজে আমাদের একটি আসর জমানো উঠোন ছিলো।

চৈত্রের দাবদাহে বৃষ্টির প্রার্থনায় “আল্লাহ মেঘ দে, পানি দে, ছায়া দে রে তুই” গানের মূর্ছনায় হারিয়ে যাওয়া আমাদের একটি গানের দল ছিলো।

কলাপাতার ছাউনিতে ঘেরা চড়ুইভাতির স্মৃতিময় আমাদের একটি স্বপ্নের গৃহ ছিলো।

আম কুড়ানোর প্রতিযোগিতামুখর আমাদের একটি ঝড়ের নিশীথিনী ছিলো।

তমিস্রা গৃহে বয়াম ভর্তি জোনাকপোকাদের নিয়ে আমাদের একটি প্রভা তমিস্রা অবনী ছিলো।

সরিষা ক্ষেতে ফড়িং এর লেজে সুতো বেঁধে তার পেছন পেছন দৌড়ে চলা আমাদের একটি হলদে সময় ছিলো।

পুতুল খেলার ছলে পুতুলের বিয়ে দিয়ে আমার একটি পাতানো সই ছিলো।

লেস ফিতের দুই বেনী করা কুন্তলের ভাঁজে জন্মদাত্রীর ভালোবাসায় পরিপূর্ণ একটা জীবন ছিলো।

সইয়ের যোগাযোগ রক্ষার জন্য আমাদের একটি সত্যিকারের সচল ডাকবাক্স ছিলো।

আরও খবর 40

Sponsered content