• sponsored

  • অপরাধ

    মহেশখালীতে স্কুল ছাত্রীকে গণধর্ষণ,প্রেমিক গ্রেফতার

      প্রতিনিধি ১৪ অক্টোবর ২০২০ , ১১:৩৬:০৮ প্রিন্ট সংস্করণ

    মহেশখালী প্রতিনিধি:

    কক্সবাজারের মহেশখালী উপজেলা বড় মহেশখালী ইউনিয়নে ঘটেছে স্কুল ছাত্রীকে গণধর্ষণের ঘটনা। প্রেমিকসহ তিনবন্ধু মিলে ধর্ষণ করে স্কুল ছাত্রীকে। এবং তা ভিডিও ধারণ করে বলে জানাগেছে। গত ১১ অক্টোবর উপজেলার বড় মহেশখালী ইউনিয়নের দেবাঙ্গা পাড়া গ্রামে এ লোমহর্ষক ঘটনা ঘটে।

    এই ঘটনায় পুলিশ প্রেমিক এবাদুল্লাহকে আটক করেছে। তবে ঘটনাটি একটি প্রভাবশালী মহল দামাচাপা দেওয়ার চেষ্ঠা ও চালিয়ে ব্যর্থ হয়েছে।

    ধর্ষনের শিকার স্কুল ছাত্রীর বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, বড় মহেশখালী ইউনিয়নের দেবাঙ্গা পাড়া গ্রামের ওই স্কুল ছাত্রী গুলগুলিয়া পাড়ার মোহাম্মদ আলী প্রকাশ নবাব মিস্ত্রির পুত্র ধৃত এবাদুল্লাহর সাথে প্রেমের সম্পর্ক ছিলো। এর অংশ হিসেবে গত ১১ অক্টোবর রাত সাড়ে ৯ টার দিকে প্রেমিক এবাদুল্লাহ ফোন করে ওই স্কুল ছাত্রীকে ঘর থেকে বের করে। সে বের হয়ে দেখে প্রেমিকের সাথে আরোও দুই বন্ধু রয়েছে। এক পর্যায়ে জোর করে প্রেমিকসহ তিনজনই ওই স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ এবং তা ভিড়িও ধারণ করে।

    ধর্ষণের শিকার স্কুল ছাত্রীর বরাত দিয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য এরফান উল্লাহ বলেন, ধর্ষণের পরে ধর্ষণের শিকার স্কুল ছাত্রী পরিবারের লোকজনকে ফোন করে ধর্ষণ ও ভিডিও ধারণের বিষয়টি জানায় ধর্ষকরা। ভিডিও ধারণের কথাটি জানিয়ে মোটা অংঙ্কের চাঁদা দাবি করে ধর্ষকরা। টাকা না দিলে ভিডিও টি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ছেড়ে দেওয়ার হুমকি দেয়। কিন্তু মেম্বার তাদের জন্য ফাঁদ পাতে। এর অংশ হিসেবে চাঁদা টাকার জন্য ১২ অক্টোবর রাতে বিলে আসে প্রেমিক এবাদুল্লাহ। এক পর্যায়ে মেম্বারসহ স্থানীয় লোকজন ধান ক্ষেতে ওৎপেতে থাকে এবং চাঁদার টাকা নিতে আসলে এবাদুল্লাহকে ধরে ফেলে। পরে খবর পেয়ে মহেশখালী পুলিশ গিয়ে ধর্ষক এবাদুল্লাহকে থানায় নিয়ে আসে।

    মহেশখালী থানার পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) এমরানুল কবির প্রতিবেদককে বলেন, গতকাল সকালে মহেশখালী উপজেলা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ধর্ষণের ঘটনায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে এবাদুল্লাহ ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন। ওই মামলার জড়িত অপর দুই আসামিকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

    মহেশখালী থানার পরিদর্শক এমরানুল কবির বলেন, স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ওই স্কুলছাত্রীতে গতকাল দুপুরে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

    মহেশখালী থানার ওসি আব্দুল হাই বলেন, এই ঘটনায় ধর্ষণের শিকার স্কুল ছাত্রীর মা বাদী হয়ে মামলা করেছেন। ওসি জানান, এই ঘটনায় জড়িত অন্যদেরও গ্রেফতারে অভিযান জোরদার রয়েছে।

    আরও খবর 99

    Sponsered content